জন্ম নিবন্ধন আবেদন প্রক্রিয়া ও কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই

জন্ম নিবন্ধন আবেদন প্রক্রিয়া ও কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই: কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই হলো জন্ম নিবন্ধন চেক করার সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি। সাধারণত জন্ম নিবন্ধন চেক করার এই কোড হয়ে থাকে ১৭ ডিজিটের। যার সাহায্যে জন্ম নিবন্ধনপত্র চেক করে কোনো ভুল আছে কিনা তা বের করা যায় এবং পরবর্তীতে তা সংশোধনের আওতায় আনা যায়। 

এসএমএস বা কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই এবং জন্ম নিবন্ধন আবেদন সম্পর্কিত গাইডলাইন

যদিও কোড ছাড়াও জন্ম নিবন্ধন চেক করার সুযোগ আছে। তবে যারা ঝামেলা ছাড়াই এই কাজ সারতে চান তারা নিচের স্টেপগুলি ফলো করতে পারেন: 

. ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন

কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে হলে শুরুতেই আপনাকে একটি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হলে এই লিংকটি কপি করে সার্চ বারে পেস্ট করুন, https://everify.bdris.gov.bd/। 

. ১৭ ডিজিটের কোড নাম্বার দিন

এবার আপনাকে ওয়েবসাইটের Enter বাটনটি ক্লিক করতে হবে। এতে করে একটি পেইজ শো করবে যার শুরুতেই ১৭ ডিজিটের কোডের সাহায্যে জন্ম নিবন্ধন যাচাইয়ের ব্যাপারে স্পষ্টভাবে বলা থাকবে। ফরম আকারের এই পেইজটিতে প্রবেশ করে প্রথম বক্সে ১৭ ডিজিটের কোডটি দিন এবং দ্বিতীয় বক্সে দিন আবেদনকারীর YYYY-MM-DD সম্পর্কিত তথ্য। সবশেষে ক্যাপচা পূরণ করে আপনাকে Search বাটনে ক্লিক করতে হবে। 

. চেক করে নিন

কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই প্রক্রিয়ার এই পর্যায়ে Search বাটনে ক্লিক করার পরপরই জন্ম নিবন্ধন শো করবে। এক্ষেত্রে সকল তথ্য সহজেই চেক করে নিতে পারবেন এবং যদি কোনো ভুল থাকে তা খুঁজে বের করে সংশোধনীতে দিতে পারবেন। 

. জন্ম নিবন্ধন প্রিন্ট করে নিন

সবশেষে কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই প্রক্রিয়া শেষ হলে এবং জন্ম নিবন্ধনের সকল তথ্য সঠিকভাবে দেওয়া আছে মনে করলে Ctrt+P বাটন চেপে প্রিন্ট অপশনে গিয়ে প্রিন্ট করে নিতে পারেন। প্রিন্ট কপি ডাউনলোড করার সময় Save as PDF সিলেক্ট করতে ভুলবেন না যেনো।

১৬ নম্বরের ডিজিট থাকলে কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার উপায়

কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার সময় অনেকেই হয়তো ১৬ ডিজিট থেকে ভড়কে যেতে পারেন। এক্ষেত্রে টেনশনের কোনো কারণ নেই। সমাধান হিসাবে নিচের স্টেপগুলি ফলো করুন। 

শুরুতেই এই https://everify.bdris.gov.bd/ লিংক সার্চ বারে রেখে পেস্ট করুন। সেই সাথে আপনাকে আপনার জন্ম নিবন্ধন কার্ডটিকে পাশে রাখতে হবে। সবশেষে যখন আপনি কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করবেন ঠিক তখনই সর্বশেষ ৫ ডিজিট এর পূর্বে অতিরিক্ত একটি ০ বসিয়ে দিবেন। ঠিক পরীক্ষার হলে এমসিকিউতে বিষয় কোড বা রোল বসানোর মতো করে। 

মনে রাখবেন আপনার জন্ম নিবন্ধন কোড যদি ১৬ ডিজিটের হয় তাহলে তার সাহায্যে কোনোভাবেই কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করা সম্ভব হবে না। এক্ষেত্রে উক্ত কোডের পূর্বে একটি ০ বসিয়ে ১৭ সংখ্যার কোডে তা রূপান্তর করতে হবে। 

জন্ম নিবন্ধন আবেদন প্রক্রিয়া ও কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই
জন্ম নিবন্ধন আবেদন প্রক্রিয়া ও কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই

এসএমএস দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম

যারা কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে চান না বা যাদের স্মার্টফোন নেই তারা এসএমএস দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম জেনে নিন। 

১. মোবাইলের ফোন অপশনে ক্লিক করে বা বাটন ফোন ওপেন করে প্রথমে ডায়াল করুন *১৬১০০#। 

২. এই পর্যায়ে এসে মেনু থেকে 1. Age verification ক্লিক করুন। এরপর পুনরায় চাপ দিন 2. birth reg অপশনে।

৩. এরপর একটি পেজ আসবে। সেখানে আপনাকে জন্ম নিবন্ধনের ১৭ ডিজিটের কোডটি বা সিরিয়াল নাম্বারটি দিতে হবে। 

৪. কোড দেওয়ার পর দিতে হবে আবেদনকারীর জন্ম তারিখ, মাস এবং বছর। সবকিছু ঠিকঠাকভাবে দিয়ে ম্যাসেজ পাঠিয়ে দিন *১৬১০০# নাম্বার। 

৫. ব্যাস! আপনার কাজ শেষ ফিরতি এসএমএসে তারা আপনাকে SMS দিয়ে জন্ম নিবন্ধন সনদের সকল তথ্য পাঠিয়ে দেবে। 

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন করার উপায় 

আর্টিকেলের এই অংশে আমরা আলোচনা করবো সহজেই জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন করার উপায় সম্পর্কে। কোনো তথ্য মিস করতে না চাইলে আমাদের সাথেই থাকুন। 

১ম ধাপ

শুরুতে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন করার পূর্বে আপনাকে জন্ম নিবন্ধনে থাকা ভুল খুঁজে বের করতে হবে। এক্ষেত্রে সাহায্য নিতে হবে এই https://bdris.gov.bd/br/correction লিংকের। 

২য় ধাপ

লিংকে প্রবেশ করে ১৭ সংখ্যার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ও জন্ম তারিখ দিন এবং ক্যাপচা পূরণ করে দেখে নিন সার্টিফিকেটে ঠিক কি কি ভুল তথ্য রয়েছে। 

৩য় ধাপ

এবারে আপনাকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র যোগাড় করতে হবে। এক্ষেত্রে ভুলের উপর নির্ভর করে ডকুমেন্টস শো করাতে হবে। চলুন জেনে নিই কি কি ভুল করলে কোন কোন ডকুমেন্টের প্রয়োজন পড়বে: 

. আবেদনকারীর নাম সংশোধন করতে লাগবে বয়স যাদের কম তাদের ক্ষেত্রে টিকা কার্ডের কপি, অভিভাবকের জাতীয় পরিচয় পত্র এবং শিক্ষাগত যোগ্যতা সনদ। 

. আবেদনকারীর স্থায়ী ঠিকানা পরিবর্তনে প্রয়োজন পড়বে চেয়ারম্যান অথবা কাউন্সিলরের প্রত্যয়ন পত্র, স্থায়ী ঠিকানার খাজনা অথবা কর পরিশোধের রশিদ। অন্যদিকে বর্তমান ঠিকানা পরিবর্তন করতে চাইলে লাগবে বিদ্যুৎ অথবা ইউটিলিটি বিলের কপি। 

. যাদের সনদে বাবামায়ের নাম ভুল হয়েছে তারা সাথে পিতা মাতার অনলাইন জন্ম নিবন্ধন, পিতা এবং মাতার NID Card নিজের শিক্ষা সনদ সাথে নেবেন৷ 

৪র্থ ধাপ 

এবার আপনাকে একটি সংশোধনীর ফরম দেওয়া হবে। এটি পূরণ করে উপরোক্ত ডকুমেন্টস হতে চাওয়া তথ্যগুলি দিয়ে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন পর্ব সেরে ফেলুন৷ 

যারা ঘরে বসে নিজেরাই জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন করতে চান না তারা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সাথে নিয়ে নিকটস্থ কম্পিউটার দোকানে বা পরিষদ বোর্ডে যেতে পারেন। সামান্য কিছু ফি এর বিনিময়ে তারা আপনার এই আবেদনের কাজটি সম্পন্ন করে দেবে। তবে এক্ষেত্রে অবশ্যই সঠিক তথ্য দিতে হবে। নতুবা বার বার ভুল সংশোধন করার ভোগান্তিতে পড়ার সম্ভাবনা থেকে যাবে। 

সচরাচর জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাইয়ের কোনো app আছে

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন যাচাইয়ের আলাদা কোনো অ্যাপ নেই। তবে এই কাজ করতে যে অ্যাপটির সাহায্য লাগবে সেই অ্যাপটির নাম হলো Google Chrome। যেখান থেকে আপনি সেই অতিব গুরুত্বপূর্ণ ওয়েবসাইট অর্থ্যাৎ https://everify.bdris.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে পারবেন। 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কত টাকা লাগে?

কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে বাংলাদেশ সরকারের নীতিমালা অনুযায়ী ২০০ অথবা ৩০০ টাকা লাগতে পারে। এক্ষেত্রে এর মাঝে ৫০/- সরাসরি ফি হিসাবে বিবেচিত হয় এবং বাকি টাকার পরিমাণ নির্ভর করবে জন্ম নিবন্ধন সার্টিফিকেটের কোন তথ্যটি আপনি সংশোধন করতে চাচ্ছেন তার উপর। 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কত দিন লাগে?

কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে বাংলাদেশ সরকারের নীতিমালা অনুযায়ী ১৫ দিনের মতো সময় লাগতে পারে। এক্ষেত্রে আপনার উচিত যত তাড়াতাড়ি সম্ভব প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দিয়ে আবেদন সম্পন্ন করে ফেলা। 

ইতি কথা

কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই এবং জন্ম নিবন্ধন আবেদন সম্পর্কিত বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করেছি। আশা করি এ-ব্যাপারে আর কোনো প্রশ্ন নেই। মনে রাখবেন শিশুর ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়া অব্দি এই জন্ম নিবন্ধন হলো তা রাষ্ট্রীয় সুযোগ সুবিধা গ্রহণের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ টিকিট। যা ছাড়া সে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হতে পারে এবং ছিটকে পড়তে পারে রাষ্ট্রীয় নিয়ম হতে। সুতরাং আজই আপনার শিশুর জন্ম নিবন্ধন সার্টিফিকেট তৈরি করিয়ে নিন।  

4 thoughts on “জন্ম নিবন্ধন আবেদন প্রক্রিয়া ও কোড দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই”

  1. Pingback: Bangladesh Bank AD Preliminary Question Solution and Result 2023 -

  2. Pingback: Tree Plantation Paragraph for Class 6,7,8,9-10 in 150,200,250 Words -

  3. Pingback: CZM Genius Scholarship 2024 Circular [Apply Now] -

  4. Pingback: Dakhil Exam Routine 2024 PDF Madrasah Education Board -

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top